• বুধবার   ০২ ডিসেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১৮ ১৪২৭

  • || ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
‘সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশের শান্তি বজায় রাখতে বদ্ধপরিকর’ কুড়িগ্রামে ট্রলিচাপায় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান নিহত চীনা বা ভারতীয় ঋণের ফাঁদের গল্প তথ্যভিত্তিক নয়- পররাষ্ট্রমন্ত্রী ভঙ্গুর সাংগঠনিক অবস্থার কারণে নিশ্চিহ্নের পথে বিএনপি ছদ্মবেশে সরকারি অফিস থেকে দালাল ধরলেন ম্যাজিস্ট্রেট

গ্রামীণ সড়ক রক্ষণাবেক্ষণসহ মজবুত করে তৈরির নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২১ অক্টোবর ২০২০  

গ্রামীণ সড়ক যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণ এবং আরো মজবুত করে তৈরির নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, রাস্তা বানানোর জন্য যে বরাদ্দ দেওয়া হয় সেটা যেন যথাযথ ব্যবহার হয়। এজন্য মনিটরিং বাড়াতে হবে। আওয়ামী লীগ সকরারের আমলে অনেক উন্নয়ন কার্যক্রম হচ্ছে, গ্রাম ও শহরের পার্থক্য কমে আসছে। ফলে গ্রামের রাস্তায়ও এখন ভারী যানবাহন চলাচল করছে। এজন্য গ্রামীণ সড়কগুলোকে সেভাবে নির্মাণ করতে হবে।


গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে এই নির্দেশনা দেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী ও একনেকের চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনের সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে শেরেবাংলা নগরস্থ এনইসি সম্মেলনকক্ষে একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভা শেষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন পরিকল্পনা বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম।

সভায় চারটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে একটি সংশোধিত। নতুন প্রকল্পের বরাদ্দ এবং সংশোধিত প্রকল্পের বাড়তি বরাদ্দ মিলিয়ে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৬৬৮ কোটি ২৯ লাখ টাকা।

অনুমোদিত প্রকল্পগুলোর বিভিন্ন দিক ও প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন তুলে ধরে মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, সভায় ৫৬৬ কোটি ৭৬ লাখ টাকা ব্যয়ে যশোর বিমানবন্দর, সৈয়দপুর বিমানবন্দর ও শাহমখদুম বিমানবন্দর, রাজশাহীর রানওয়ে সারফেসে অ্যাসফল্ট কংক্রিট ওভারলেকরণ প্রকল্প অনুমোদ দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ইকোনমিক জোন হচ্ছে, অন্যান্য কার্যক্রম হচ্ছে, এজন্য বিমানবন্দরগুলোর ব্যবহার বৃদ্ধি পাচ্ছে, সেজন্য বিমানবন্দরগুলোর যথাযথ উন্নয়ন ও সংস্কার প্রয়োজন। তাছাড়া রাতে বিমান ওঠানামা যাতে করতে পারে, সেজন্য পর্যাপ্ত লাইটিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে।

সভায় ৩০১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের কদমরসুল অঞ্চলে কঠিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য ভূমি অধিগ্রহণ ও উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এতে সংস্থার নিজস্ব ব্যয় ধরা হয়েছে ৩০ কোটি ১৬ লাখ টাকা। এ প্রকল্প নিয়ে আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা এমনভাবে করতে হবে, যাতে করে পানি দূষিত না হয়।

সভায় মাদারীপুর, শরীয়তপুর ও রাজবাড়ী জেলা গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের প্রথম সংশোধনী অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ১০৯ কোটি ১৮ লাখ টাকা। সংশোধনের ফলে এর ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে ৫৪৯ কোটি ৩ লাখ টাকা। এছাড়া সভায় ২৫১ কোটি ১৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ভূ-উপরিস্থ পানি উন্নয়নের মাধ্যমে বৃহত্তর দিনাজপুর ও জয়পুরহাট জেলায় সেচ সম্প্রসারণ প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –