• সোমবার   ০৮ মার্চ ২০২১ ||

  • ফাল্গুন ২৪ ১৪২৭

  • || ২৪ রজব ১৪৪২

সর্বশেষ:
সংসদে নারী প্রতিনিধিত্বে ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ লিঙ্গ সমতা ও নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখন রোল মডেল: প্রধানমন্ত্রী আজ আন্তর্জাতিক নারী দিবস করোনার এক বছর, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের সফল চেষ্টায় এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে এসেছে সর্বনাশা এই বৈশ্বিক মহামারির অভিশপ্ত ছোঁয়া নারী দিবসে শ্রেষ্ঠ ৫ জয়িতা পেলেন সম্মাননা

প্রেমের টানে চুয়াডাঙ্গা থেকে কুড়িগ্রামে, অতঃপর ডোবায় মিলল লাশ

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১  

'অনলাইনে পরিচয়, প্রায় ১বছরের প্রেম। এরপর মেয়ের পরিবার মেয়েটির অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক করলে ছেলেটি গত ১২ ফেব্রুয়ারি যশোরের চুয়াডাঙ্গা থেকে ছুটে আসে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে। তারপর চেষ্টা করেন মেয়ে ও তার পরিবারকে বুঝিয়ে রাজি করাতে। রাজি করাতে না পেরে অস্বাভাবিক আচরণ করা শুরু করেন তিনি। কখন ডোবায় তার লাশ মিলল'।

শনিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) সকালে কুড়িগ্রাম সদরের ধরলা নদীতে উদ্ধার হওয়া যুবকের লাশ শনাক্ত করতে এসে এসব জানান তার বন্ধু মোফাজ্জল। প্রেমের টানে লাশ হওয়া সেই যুবকের নাম রাজু আহমেদ (২৫)।

জানা যায়, প্রায় সময়ই প্রেমিকার সাথে দেখা করতে কর্মস্থল ঢাকা থেকে কুড়িগ্রামের নাগেশ্বরীতে আসেন তিনি। এভাবে চলার পর জানতে পারলেন প্রেমিকার বিয়ে হয়ে যাচ্ছে। গত ১২ ফেব্রুয়ারি বিয়ে হয় প্রেমিকার। খবর পেয়ে সেদিনই নাগেশ্বরীতে আসেন প্রেমিক রাজু। কিন্তু বিয়ে ঠেকাতে পারেননি, পারেননি প্রেমিকাকেও ফেরাতে।  শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) রাতে আবারও ঢাকার উদ্দেশে ফেরার কথা ছিল তার; কিন্তু ফেরা হয়নি।

আজ সকালে ধরলা ব্রিজের নিচ থেকে রাজুর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। কুড়িগ্রাম সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) খান মো. শাহরিয়ার নিহত রাজুর মরদেহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

প্রেমের টানে রাজুর কুড়িগ্রাম আসার বিষয়টি জানান রাজুর পূর্ব পরিচিত নাগেশ্বরী ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী মোফাজ্জল হোসেন। এর আগেও রাজু কুড়িগ্রাম এসে ফিরে গেছেন। একবার তার পরিবারের লোকজন তাকে ফিরিয়ে নিয়ে যায় বলে জানান মোফাজ্জল।

নিহত রাজুর বাড়ি চুয়াডাঙার বিরামপুরে। তার বাবার নাম আশরাফুল ইসলাম। দুই ভাইয়ের মধ্যে রাজু বড়। পড়াশোনা শেষে ঢাকায় একটি কোম্পানিতে চাকরি করতেন বলে জানান রাজুর বাবা।

রাজুর বাবা জানান, প্রেম ঘটিত কারণে রাজু এর আগেও কুড়িগ্রাম গিয়েছিল। একবার আমরা তাকে ফিরিয়ে এনেছিলাম। কিন্তু এবার কবে গেছে তা আমরা জানতাম না, আমাদেরকে কিছু বলেওনি। কুড়িগ্রাম থেকে রাজুর এক বন্ধুর ফোন পেয়ে ছেলের মৃত্যুর খবর জেনেছেন।

রাজুর বন্ধু মোফাজ্জল জানান, যে তরুণীর সাথে রাজুর প্রেমের সম্পর্ক ছিল তার বাড়ি নাগেশ্বরীতে। গত ১২ ফেব্রুয়ারি তার বিয়ে হয়। এজন্য রাজু মানসিকভাবে খুব বিপর্যস্ত ছিল। গত রাতে তার ঢাকায় ফেরার কথা ছিল। কীভাবে তার মৃত্যু হলো তা আমরা বুঝতে পারছি না।

ওসি জানান, ময়না তদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। নিহতের পরিচয়সহ তার মুত্যুর কারণ নির্ণয়ে আমাদের অফিসার তদন্ত করছে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –