ব্রেকিং:
দিনাজপুরে গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩ জন ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৩ হাজার ৯৪৪ জনে। মঙ্গলবার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ আব্দুল কুদ্দুছ। গাইবান্ধার পলাশবাড়ী উপজেলায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধে বড় ভাই আদম আলীর ধারালো কাচির আঘাতে ছোট ভাই শাপলা মিয়া (৫০) নিহত
  • বুধবার   ২৫ নভেম্বর ২০২০ ||

  • অগ্রাহায়ণ ১০ ১৪২৭

  • || ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২

সর্বশেষ:
স্বাধীনতার পর সবচেয়ে বড় নির্মাণ অবকাঠামো হলো পদ্মাসেতু পীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বেড়েছে সেবার মান দিনাজপুরে আশার আলো জাগিয়েছে ‘ব্রি ধান ৮৭’ কুড়িগ্রামে বিনামূল্যে সোলার হোম সিস্টেম বিতরণ চার এমওইউ স্বাক্ষর হতে পারে হাসিনা-মোদি ভার্চুয়াল বৈঠকে ৪৩তম বিসিএসে নিয়োগ পাবেন ১৮১৪ জন

বাংলায় আদালতের রায় লেখার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৫ নভেম্বর ২০২০  

আদালতের রায় বাংলায় লেখার ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রয়োজনে ট্রান্সলেটর নিয়োগের ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিচার বিভাগের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।


বুধবার সকালে ঢাকা জেলার নবনির্মিত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভবন উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান। রাজধানীর জনসন রোডে আদালত পাড়ায় ঢাকা জেলার নবনির্মিত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ভবনের মূল অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশগ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আইন সচিব গোলাম সারোয়ার। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, রায় যদি কেউ বাংলায় লিখতে না পারেন, তবে ইংরেজিতে লিখলেও কোনো আপত্তি নেই। কিন্তু সেই রায় বাংলায় অনুবাদ করে যেন প্রচার হয়, সে ব্যবস্থা করে দিতে হবে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশে মামলার রায়গুলো ইংরেজিতে দেয়া হয়। অনেকে সেই রায় বুঝতে পারেন না। আইনজীবীরা যেভাবে তাদের বোঝান, তারা সেভাবেই বোঝেন।

শেখ হাসিনা বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ ইংরেজি লিখতে লিখতে যেহেতু অনেকে অভ্যস্ত হয়ে গেছেন, সেহেতু বাংলাতেই রায় লিখতে হবে, এমন ধরনের চাপ প্রয়োগ করা এখনি ঠিক নাও হতে পারে। সেক্ষেত্রে আমি বলবো যে, এগুলো ট্রান্সলেশন করা কোনো কঠিন কাজ নয়। অনেক প্রফেশনাল ট্রান্সলেটর আছেন, যাদের আপনারা প্রশিক্ষণ দিয়ে নিতে পারেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ট্রান্সলেটরদের কাজ হবে যেটাই লেখা হোক, তার যথাযথ ট্রান্সলেশন করা। এই অনূদিত রায়ই প্রচার করতে হবে, যাতে সঙ্গে সঙ্গে মানুষ জানতে পারে। ফলে বিচারে কি রায় হলো, তা সে নিজে দেখে বুঝতে ও জানতে পারবে। এ ব্যাপারে যদি কোনো ফান্ড লাগে সেটারও ব্যবস্থা করবো। কিন্তু আমি চাই এটা যেন হয়।

তিনি বলেন, জুন মাস পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন আদালতে ৩৭ লাখ ৯৪ হাজার ৯০৮টি মামলা বিচারাধীন রয়েছে। এসব মামলার দীর্ঘসূত্রিতা কমিয়ে দ্রুততম সময়ে রায় প্রদানের উপায় বের করার জন্য সব বিচারক ও আইনজীবীদের কাছে আমি অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মামলা যেন এভাবে জমে না থাকে। তিনি এসব মামলার বিচার কাজ দ্রুত সম্পন্ন করার জন্যে আন্তরিক হবার জন্যে নির্দেশ দেন।

তিনি এটাও বলেন যে, এজন্য যেকোনো ধরনের সহযোগিতা করতে সরকার প্রস্তুত রয়েছে, কিন্তু এতোগুলো মামলা এভাবে পড়ে থাকুক সেটা আমরা চাই না।

শেখ হাসিনা বলেন, স্বল্প সময়ে ও স্বল্প খরচে ভোগান্তি ছাড়া বিচার প্রাপ্তি মানুষের অধিকার। সেটা নিশ্চিত করা গেলে বিচার বিভাগের ওপর মানুষের যে আস্থা ও বিশ্বাস রয়েছে, তা আরো বৃদ্ধি পাবে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –