• সোমবার   ১২ এপ্রিল ২০২১ ||

  • চৈত্র ২৯ ১৪২৭

  • || ২৯ শা'বান ১৪৪২

সর্বশেষ:
আপদকালীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে ৪৮৩ উপজেলায় ৩ লাখ টাকা করে অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে সরকার জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় চরাঞ্চলের স্কুলের সাথে ফ্রান্সের মতবিনিময় চলতি সপ্তাহেই ২০০ শয্যার আইসিইউ হাসপাতাল প্রস্তুত হবে লকডাউনে রফতানিমুখী শিল্প কারখানা খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে রংপুরে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

রাজারহাট-সেলিম নগর সড়কে অবসান হচ্ছে জন ভোগান্তির

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৩০ মার্চ ২০২১  

অবশেষে রাজারহাট উপজেলার জন গুরুত্বপূর্ণ সেলিম নগর-রাজারহাট সড়ক নিয়ে দীর্ঘদিনের জন ভোগান্তির অবসান হচ্ছে। সংস্কার ও বর্ধিত করন প্রকল্পে শুরু হয়েছে কার্পেটিং কাজ । এই কাজটি সম্পন্ন হলে কুড়িগ্রাম-লালমনিরহাট জেলা সদর ও উপজেলার ছিনাই ইউনিয়নের সাথে রাজারহাট উপজেলার যোগযোগ ব্যবস্থার ্আমূল পরিবর্তন ঘটবে। এটি লালমনিরহাট জেলা সদর ও কুড়িগ্রাম জেলার একাংশের রাজারহাট উপজেলার প্রবেশ দাড়।

জানা গেছে, এডিবি ও জিওবি’র অর্থায়নে ২০১৮-২০১৯ইং অর্থ বছরে রাজারহাট-সেলিম নগর রাস্তা সংস্কার ও বর্ধিত করন কাজের টেন্ডার হয়। প্রায় সাড়ে ৮ কোটি টাকায় কাজটির টেন্ডার প্রাপ্ত হয় রুপান্তর জেভি কনষ্ট্রাকশন।

এলজিইডি’র তত্ত¡াবধায়নে গত বছরের শেষের দিকে কাজটির কাজ শুরু হয়। এরআগে করোনা জনিত কারনে রাস্তাটির সংস্কার কাজ বন্ধ থাকায় চরম জন দূর্ভোগ দেখা দেয়। বর্তমানে দ্রুত গতিতে চলছে সেলিম নগর-রাজারহাট উন্নয়ন কাজ। এতে অনেক খুশী এলাকার লোকজন।

মীরের বাড়ি গ্রামের বাসিন্দা মোহাম্মদ আলী জানান,আগে রাস্তাটি খুব খারাপ ছিল,এখন ভালো হয়েছে।
পথচারী স্কয়ার কোম্পানীর প্রতিনিধি হামিদুল ইসলাম বলেন,এই রাস্তাটি দীর্ঘদিন জরাজীর্ণ থাকায় আমাদের চলতে অনেক অসুবিধা হতো,দু’টি জেলার সংযোগ রাস্তা এটি। রাস্তাটির কাজ চলছে এবং ভালো ভাবেই চলছে।

ঠিকাদারের প্রতিনিধি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন,এডিবি ও জিওবি’র অর্থায়নে দুটি প্রজেক্ট এর একটি হচ্ছে প্রায় ৮কিলোমিটার সেলিম নগর-রাজারহাট সড়ক। করোনা কালীন সময়ে আমরা কাজ বন্ধ রেখেছিলাম,এখন কাজ দ্রুত গতিতে চলছে। আগামী দুই মাসের মধ্যে ইনশোআল্লাহ কাজটি সমাপ্ত করতে পারবো।

রাজারহাট উপজেলা প্রকৌশলী আবু তাহের মোঃ শফি জানান,রাজারহাট-সেলিম নগর সড়কের কার্পেটিং কাজ দ্রুত গতিতে এবং মান সম্মত কাজ হচ্ছে। এটি সমাপ্ত হলে এই অঞ্চলের মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হবে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –