• সোমবার   ১২ এপ্রিল ২০২১ ||

  • চৈত্র ২৯ ১৪২৭

  • || ২৯ শা'বান ১৪৪২

সর্বশেষ:
আপদকালীন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে ৪৮৩ উপজেলায় ৩ লাখ টাকা করে অর্থ বরাদ্দ দিয়েছে সরকার জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় চরাঞ্চলের স্কুলের সাথে ফ্রান্সের মতবিনিময় চলতি সপ্তাহেই ২০০ শয্যার আইসিইউ হাসপাতাল প্রস্তুত হবে লকডাউনে রফতানিমুখী শিল্প কারখানা খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে রংপুরে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

হাতীবান্ধায় মুক্তিযোদ্ধা বাবার পেনশন-ভাতা তুলতে সৎ মাকে অস্বীকার 

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৭ এপ্রিল ২০২১  

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবার সম্মানী ভাতা ও অবসরের পেনশন তুলতে সৎকে অস্বীকার করার অভিযোগ উঠেছে বিমাতা ভাইয়ের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ইউএনওর কাছে অভিযোগ করেছেন তার সৎ বোন নজিমা বেগম। অভিযুক্ত আজিজুল ইসলাম হাতীবান্ধার সিঙ্গিমারী গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হকের ছেলে।

জানা গেছে, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরল হক ভূমি অফিসের কর্মচারী ছিলেন। তার মৃত্যুর পর মুক্তিযোদ্ধা সম্মানী ভাতা, চাকরির পেনশন ও জমি বন্টন করতে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে ওয়ারিশ সনদ গ্রহন করেন ছেলে আজিজুল ইসলাম। সনদে সৎ বোন নজিমা বেগমকে নিজের বোন উল্লেখ করলেও সৎ মা মনজিরন নেছাকে অস্বীকার করেন তিনি। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে তার বিরুদ্ধে হাতীবান্ধার ইউএনও সামিউল আমিনের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন সৎ বোন নজিমা বেগম।

অভিযুক্ত আজিজুল ইসলাম বলেন, মনজিরন নেছাকে আমার বাবা বিয়েই করেননি। নজিমাকে নিজের বোন হিসেবে স্বীকার করেছি মানবিক কারণে।

সিঙ্গিমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন দুলু বলেন, আজিজুল ইসলাম তথ্য গোপন করে আমার কাছ থেকে ওয়ারিশ সনদ নিয়েছে। পরে আমি সংশোধন করে আবারো ওয়ারিশ সনদ দিয়েছি।

হাতীবান্ধার ইউএনও সামিউল আমিন বলেন, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –