• রোববার   ২৫ জুলাই ২০২১ ||

  • শ্রাবণ ৯ ১৪২৮

  • || ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

সাত দিনে সাত কেজি ওজন কমানোর ‘জিএম ডায়েট’

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৮ জুলাই ২০২১  

মাত্র সাত দিনে সাত কেজি ওজন কামানোর ডায়েট ফর্মূলা হাজির। এই ডায়েটের নাম জিএম ডায়েট বা জেনেরাল মোটোর্স ডায়েট।

আমেরিকার জন্ংস হপকিন্স গবেষণা কেন্দ্র এবং এফডিএ যৌথভাবে এই ডায়েট পরিকল্পনা করেছিল। অন্য ডায়েটের তুলনায় এভাবে খাওয়া দাওয়া করলে নাকি অনেক বেশি পরিমাণে ক্যালোরি ঝরে।

এই ডায়েট মানা বেশ কঠিন। কবে কী খাবেন এবং কী খাবেন না, খুব পরিষ্কার ভাবে বলা রয়েছে এই ডায়েটে। মূলত ফল আর সব্জির মতো লো-ক্যালোরি খাবার থাকায় বেশি ফ্যাট ঝরবে বলে দাবি করেছে এই ডায়েটের নির্মাতারা।

সাত দিনের প্রথম তিন দিন কোনও রকম শরীরচর্চা করা যাবে না এই খাদ্যাভ্যাসে। বাকি দিনগুলো আপনি চাইলে শরীরচর্চা করতে পারেন। তবে না করলেও ওজন কমার কথা।

বাঁধাকপি, সেলেরি, টমেটো, পেঁয়াজ এবং ক্যাপসিকাম দিয়ে তৈরি ‘জিএম স্যুপ’ দু-তিন বাটি প্রত্যেকদিন খিদে পেলে খাওয়ার অনুমতি দেয় এই ডায়েট।

সাত দিন কী খাবেন

দিন ১

প্রথমদিন শুধুই ফল খাওয়া যাবে। তবে কলা বাদে যে কোনও ফল।

যত ইচ্ছে ফল খেতে পারেন।

তরমুজের মতো ফলই খাওয়ায় জোর দেয় এই ডায়েট।

দিন ২

শুধুই সবজি খাওয়া যাবে। আলু খেতে চাইলে সেটা নাস্তায় খেয়ে ফেলাই ভাল।

যত ইচ্ছে সবজি খেতে পারেন। রান্না করে অথবা স্যালাদের মতো।

দিন ৩

ফল আর সবজি মিলিয়ে খেতে হবে। তবে আলু বা কলা খাওয়া চলবে না।

দিন ৪

শুধু দুধ এবং কলা খাওয়া যাবে।

৬টা বড় অথবা ৮ ছোট কলা খেতে পারেন। লো ফ্যাট দুধ ৩ গ্লাস খেতে হবে সারা দিনে।

দিন ৫

২৮৪ গ্রাম প্রোটিন (পনীর বা মাছ বা চিকেন) খেতে হবে।

সঙ্গে ৬টা টমেটো খেতে হবে।

বাড়তি ইউরিক অ্যাসিড ধুয়ে ফেলতে পানি খাওয়ার পরিমাণ বাড়িয়ে দিন।

দিন ৬

২৮৪ গ্রাম প্রোটিন (পনীর বা মাছ বা চিকেন)

আলু ছাড়া যে কোনও সবজিও সঙ্গে খেতে পারেন।

বাড়তি ইউরিক অ্যাসিড ধুয়ে ফেলতে জল খাওয়ার পরিমাণ বাড়িয়ে দিন।

দিন ৭

শেষ দিন ব্রাউন রাইস, সবজি, ফল খেতে পারেন।

ফলের রস খান সারাদিন ধরে।

কতটা খাবার খাওয়া যাবে, তা পরিষ্কার করে বলা নেই এই ডায়েটে।

আরও যা মাথায় রাখতে হবে

ব্ল্যাক কফি বা র-চা খেতে পারেন। কিন্তু চিনি ছাড়া।

সাত দিন পর হাই প্রোটিন এবং লো-কার্ব ডায়েট করতে হবে কিছুদিন। নয়তো দ্রুত ফের ওজন বেড়ে যেতে পারে।

ডায়েট করার সময়ে বিন খাওয়া যাবে না।

যাদের দুধ সহ্য হয় না তারা সয়ামিল্ক খেতে পারেন।

ডায়েটের খারাপ দিকগুলো

কিছু কাকতালীয় ঘটনা ছাড়া এই ডায়েটের ভিত্তিতে কোনও রকম সমীক্ষা করা হয়নি। তাই আদপে কতটা কার্যকরী, তার কোনও বৈজ্ঞানিক প্রমাণ নেই। অনেক জরুরি পুষ্টিগুণ বাদ থাকবে এই ডায়েটে। যেমন প্রোটিন বেশ কম এই ডায়েটে। চটজলদি ওজন কমানোর জন্য অনেকেই এই ডায়েট করেন। কিন্তু খুব তাড়াতাড়ি এই ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –