• সোমবার   ৩০ জানুয়ারি ২০২৩ ||

  • মাঘ ১৭ ১৪২৯

  • || ০৮ রজব ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ওয়াদা করুন, নৌকায় ভোট দেবেন: প্রধানমন্ত্রী কুড়িগ্রামে জুয়া খেলার সরঞ্জামসহ সাত জুয়াড়ি গ্রেফতার এসএসসি-সমমানের পরীক্ষা শুরু ৩০ এপ্রিল হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পরীক্ষার ফি নির্ধারণ করবে সরকার নীলফামারী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি মমতাজুল, সম্পাদক অক্ষয়

মা হওয়ার উপযুক্ত বয়স

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৪ ডিসেম্বর ২০২২  

মা হওয়ার উপযুক্ত বয়স                                  
খুব স্বাভাবিক ভাবেই এখন বেশিরভাগ  নারীই নিজেকে একটু গুছিয়ে নিয়ে তারপর মা হওয়া পছন্দ করছেন। আবার ক্য়ারিয়ারের দিক থেকে দেখলে ৩৫ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে মা হওয়া একদম উপযুক্ত। চিকিত্‍সকদের মতে, ১৫ বছর বয়স থেকে ৩০ বছর বয়স পর্যন্ত একজন  নারী সবথেকে বেশি ফার্টাইল থাকেন।

চিকিত্‍সকদের মতে, মা হওয়ার জন্য ৩৫ বছর বয়সকে বলা হয় উপযুক্ত। তবে ৩৫ বছরের পরেও কোনোরকম রিপ্রোডাকশন ট্রিটমেন্টের সাহায্য ছাড়া গর্ভধারণ করা সম্ভব। তবে সন্তানের জন্ম দেওয়ার জন্য এতদিন অপেক্ষা না করতেই পরামর্শ দিচ্ছেন ডাক্তাররা। কারণ বয়স ৩০-এর কোঠা পেরনোর পরেই প্রেগন্যান্সিতে নানা ধরনের জটিলতা দেখা দিতে পারে। 

বেশি বয়সে মাতৃত্ব মানেই যে তাকে জটিলতার মধ্যে পড়তে হবে, তা নয়। ঐ নারী শারীরিক ও মানসিক ভাবে কতটা ফিট, তিনি কতটা অ্যাক্টিভ লাইফস্টাইলের মধ্যে আছেন, তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করে।

এই সময়-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আপনি যদি IVF ট্রিটমেন্টের সাহায্যে মা হওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকেন, তাহলে আগেই আপনার ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলে নিতে হবে। প্রত্যেক নারীর শারীরিক অবস্থা বিচার করে চিকিৎসকরা জানিয়ে দেবেন কোন বয়স পর্যন্ত তিনি মা হওয়ার জন্য অপেক্ষা করতে পারবেন। তার মধ্যেই চেষ্টা করুন গর্ভধারণ করে নিতে। না হলে কিন্তু সত্যিই দেরি হয়ে যাবে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –