ব্রেকিং:
রংপুরের নবীগঞ্জ এলাকায় বাসচাপায় অটোরিকশার চারযাত্রী নিহত হয়েছেন। রোববার সন্ধ্যায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।
  • শুক্রবার   ২৮ জানুয়ারি ২০২২ ||

  • মাঘ ১৫ ১৪২৮

  • || ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বিএনপির লবিস্ট নিয়োগের অর্থের হিসাব নেওয়া হবে: প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদের ১৬তম এবং বছরের প্রথম অধিবেশন সমাপ্ত দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনই একমাত্র সমাধান: সিইসি নূরুল হুদা বিএনপির নেতাদের মুখে মানবাধিকারের কথা মানায় না: হুইপ স্বপন সমুদ্রগামী জাহাজ ব্যবসায় বিনিয়োগ বাড়াচ্ছেন বাংলাদেশি উদ্যোক্তারা

উলিপুর উপজেলায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর পোস্টারে এরশাদের ছবি 

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৭ ডিসেম্বর ২০২১  

চতুর্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলার তবকপুর ইউনিয়নে জাতীয় পার্টি মনোনীত লাঙ্গল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মাহমুদার রহমান বকুলের নির্বাচনী পোস্টারে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে দলের প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের ছবি ব্যবহার করতে দেখা গেছে। এতে আচরণবিধি লঙ্ঘন হলেও ওই প্রার্থীর দাবি, তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তার ‘অনুমতি’ নিয়ে এরশাদের ছবি ছাপিয়েছেন।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে কুড়িগ্রামের উলিপুর ও রাজারহাট উপজেলার ২০টি ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচারণা জমে উঠেছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে প্রচারণা। তবে নির্বাচনী এ প্রচারণায় আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক পড়েছে। পোস্টার-ব্যানার সাঁটানোসহ শব্দযন্ত্রের (মাইক) ব্যবহারে মানা হচ্ছে না কোনো বিধিনিষেধ।

ইউনিয়ন পরিষদ (নির্বাচন আচরণ) বিধিমালা, ২০১৬ এর ৮ (৫) ধারায় বলা হয়েছে- ‘নির্বাচনী প্রচারণায় কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নিজ ছবি ও প্রতীক ব্যতীত অন্য কারও নাম, ছবি বা প্রতীক ব্যবহার করতে পারবেন না। তবে শর্ত সাপেক্ষে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী কোনো রাজনৈতিক দলের মনোনীত হলে সেই ক্ষেত্রে তিনি কেবল তার দলের বর্তমান দলীয় প্রধানের ছবি পোস্টারে বা লিফলেটে ছাপাতে পারবেন।’

একই বিধিমালার ৮ (৮) উপধারায় বলা হয়েছে- ‘কোনো প্রার্থী বা প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বা তার পক্ষে কোনো ব্যক্তি, সংস্থা বা প্রতিষ্ঠান বা রাজনৈতিক দল নির্বাচনী এলাকায় অবস্থিত দেয়াল বা যানবাহনে পোস্টার, লিফলেট বা হ্যান্ডবিল লাগাতে পারবেন না।’ তবে ভোটকেন্দ্র ব্যতীত নির্বাচনী এলাকার যেকোনো স্থানে পোস্টার ঝুলিয়ে রাখা যাবে বলে বিধিমালায় বলা হয়েছে।

উলিপুরের তবকপুর ইউনিয়নের জাতীয় পার্টি মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মাহমুদার রহমান বকুল নির্বাচন আচরণ বিধিমালা লঙ্ঘন করে তার নির্বাচনী প্রচারণার পোস্টারে নিজ ছবির সঙ্গে বর্তমান দলীয় প্রধানের ছবির পরিবর্তে দলের প্রয়াত প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদের ছবি ছাপিয়েছেন। সেসব পোস্টার ও ছবি ব্যবহারের ক্ষেত্রেও আচরণবিধির তোয়াক্কা করেননি। ইউনিয়নের বিভিন্ন গাছ, বৈদ্যুতিক খুঁটি এমনকি বসতবাড়িসহ বিভিন্ন স্থাপনার দেয়ালেও এসব পোস্টার ব্যবহার করতে দেখা গেছে।

জানতে চাইলে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মাহমুদার রহমান বলেন, এরশাদ সাহেবের ছবি ছাপানোর আগে আমি রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে অনুমতি নিয়ে পোস্টার ছাপিয়েছি। আমি কোনো আচরণবিধি লঙ্ঘন করিনি।

আচরণবিধির ধারা সম্পর্কে অবগত করলে এই প্রার্থী বলেন, সেটা ঠিক আছে, কিন্তু আমি রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমতি নিয়ে ছবি ছাপিয়েছি। এতে আমি কোনো অপরাধ করিনি। আর আমার পোস্টার লাগানোও শেষ হয়েছে।

ইউনিয়নজুড়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিষয়ে জানতে চাইলে তবকপুর ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নাদিরুজ্জামান বলেন,‘ আমাদের এ বিষয়ে কেউ কোনো অভিযোগ করেননি। প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থীকে অভিযোগ করতে হবে।

রিটার্নিং কর্মকর্তা এরশাদের ছবি ছাপানোর অনুমতি দিয়েছেন, প্রার্থীর এমন দাবির বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘প্রশ্নই আসে না। আমি কেন অনুমতি দেব? ছবি ছাপানোর বিষয়ে আচরণবিধিতে স্পষ্ট করে বলে দেওয়া হয়েছে।’

আচরণবিধি লঙ্ঘনের এমন চিত্র দৃশ্যমান থাকলেও অভিযোগ করতে হবে কেন, এমন প্রশ্নে রিটার্নিং কর্মকর্তা বলেন, ‘কাউকে অভিযোগ করতে হবে। তারপর আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখব।’

ওই ইউনিয়নের আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মোখলেছুর রহমান জানিয়েছেন, তার প্রতিপক্ষ জাতীয় পার্টির প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ এনে রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দেবেন তিনি।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –