• সোমবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||

  • আশ্বিন ১২ ১৪২৮

  • || ১৯ সফর ১৪৪৩

সর্বশেষ:
বলিষ্ঠ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন আগামীকাল বর্তমান সরকার অসম্প্রদায়িক রাজনীতিতে বিশ্বাসী: শিল্পমন্ত্রী যত বেশি গবেষণা হবে তত বেশি সফলতা আসবে: পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাহস আমাদের অনুপ্রেরণা-উৎসাহ জোগায়: নৌপ্রতিমন্ত্রী হাতীবান্ধায় বাড়ির পাশে বসে থাকা অবস্থায় কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

সালাম দিলে জান্নাত লাভ হবে 

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৫ আগস্ট ২০২১  

সালাম (سَلَام) আরবি শব্দ। এর অর্থ হলো- শান্তি, প্রশান্তি, কল্যাণ, দোয়া, আরাম, আনন্দ ইত্যাদি। একটি সম্মানজনক অভ্যর্থনামূলক ইসলামি অভিবাদন হলো- ‘সালাম’। এ কারণে কারও সঙ্গে দেখা হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কথা বলার আগে সালাম দেয়া প্রিয় নবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নির্দেশ। তিনি বলেছেন, ‘কথা বলার আগে সালাম দাও।’

আসসালামু আলাইকুম (اَلسَّلَامُ عَلَيْكُمْ) অর্থাৎ ‘আপনার ওপর শান্তি বর্ষিত হোক। সালাম আদান-প্রদানকে বলা হয় মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক উন্নয়নের এক সর্বোত্তম মাধ্যম। হাদিসে সালাম আদান-প্রদানের জোর তাগিদ দেয়া হয়েছে। 
 
সালাম ইসলামের অভিবাদন। এক মুসলিম অপর মুসলিমকে সালাম দেওয়া সুন্নত। সালাম দেওয়া-নেওয়া জান্নাতি মানুষের অভ্যাস। ইসলামে সালামের গুরুত্ব ও তাৎপর্য অনেক। সালাম দিতে স্বয়ং আল্লাহ তায়ালা আমাদের শিখিয়েছেন। রাসূল (সা.)-কে মিরাজের রাতে তিনি সালাম দিয়েছেন। বলেছেন, ‘আসসালামু আলাইকা আইয়্যুহান্নাবিয়্যু ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু’। সালামের প্রচলন ইসলামের শ্রেষ্ঠ কাজ বলেছেন প্রিয় নবী (সা.)। মুসলিমরা জান্নাতে যাওয়ার সময় ফেরেশতারা বলবে, ‘তোমাদের প্রতি সালাম’, তোমরা সুখী হও।’ (সুরা জুমার, আয়াত : ৭৩) 

আল্লাহ জান্নাতিদের সালাম দেবেন
জান্নাতেও সালামের প্রচলন থাকবে। এক জান্নাতি অপর জান্নাতিকে সালাম দেবে। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তায়ালা বলেন, ‘সেখানে তাদের অভিবাদন হবে সালাম।’ (সুরা ইউনুস, আয়াত : ১০)

মহান আল্লাহ তায়ালাও জান্নাতিদের সালাম দেবেন। এটা তাদের জন্য চরম সৌভাগ্যের বিষয় হবে। আল্লাহ তায়ালা কোরআনে বলেন, ‘সালাম, পরম দয়ালু প্রতিপালকের পক্ষ থেকে সম্ভাষণ।’ (সুরা ইয়াসিন, আয়াত : ৫৮)

সালাম দিলে জান্নাত লাভ হবে
আবদুল্লাহ ইবনে সালাম (রা.) বলেন, আমি আল্লাহর রাসূল (সা.)-কে বলতে শুনেছি, ‘হে লোক সকল! তোমরা সালাম প্রচার করো, (ক্ষুধার্তকে) খাবার দান করো, আত্মীয়তার বন্ধন অটুট রাখ এবং লোকে যখন (রাতে) ঘুমিয়ে থাকে, তখন তোমরা নামাজ পড়ো। তাহলে তোমরা নিরাপদে ও নির্বিঘ্নে জান্নাতে প্রবেশ করবে।’ (তিরমিজি, হাদিস : ২৪৮৫; ইবনে মাজাহ, হাদিস : ১৩৩৪-৩২৫১; দারেমি, হাদিস : ১৪৬০)

আবু হুরাইরা (রা.) বলেন, আল্লাহর রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘তোমরা ঈমানদার না হওয়া পর্যন্ত জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। আর যতক্ষণ না তোমাদের পারস্পরিক ভালোবাসা গড়ে উঠবে, ততক্ষণ পর্যন্ত তোমরা প্রকৃত ঈমানদার হতে পারবে না। আমি কি তোমাদেরকে এমন একটি কাজ বলে দেব না, যা করলে তোমরা একে অপরকে ভালোবাসতে লাগবে? (তা হচ্ছে) তোমরা আপোসের মধ্যে সালাম প্রচার কর।’ (মুসলিম, হাদিস : ৫৪; তিরমিজি, হাদিস : ২৬৮৮; আবু দাউদ, হাদিস : ৫১৯৩; ইবনু মাজাহ, হাদিস : ৩৬৯২; আহমাদ, হাদিস : ৮৮৪১)

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –