• বৃহস্পতিবার ১৩ জুন ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৩০ ১৪৩১

  • || ০৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন কুড়িগ্রাম

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২৮ মে ২০২৪  

ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে কুড়িগ্রামের ৯ উপজেলায় থেমে থেমে বৃষ্টি ও দমকা বাতাসে সড়ক ও বিদ্যুতের লাইনের ওপর গাছপালা ভেঙে পড়েছে। যার ফলে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে গোটা জেলা। ২৪ ঘণ্টা ধরে ঐ জেলায় বিদ্যুতের দেখা মিলছে না। ফলে জেলাজুড়ে বিদ্যুতের জন্য চলছে হাহাকার।

সোমবার (২৭ মে) বিকেল থেকে ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাব পড়তে শুরু করে কুড়িগ্রামে। একইদিন সন্ধ্যা থেকে রাতভর থেমে থেমে বৃষ্টি ও দমকা বাতাস বইতে শুরু করে। এতে করে জেলার বিভিন্ন এলাকায় গাছপালা ভেঙে পরে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। তবে কোথাও কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া অফিস সূত্র জানায়, ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৪৮ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার পাঁচগাছী ইউনিয়নের মিলপাড়া এলাকার নুরুল হক বলেন, গতকাল সন্ধ্যা থেকে আমাদের এখানে বৃষ্টি আর দমকা বাতাস বইছে। এমন একটা করে দমকা বাতাস আসছে মনে হয় বাড়িঘর ভেঙে যায়। এছাড়াও কাল থেকে বিদ্যুৎও নেই। হঠাৎ এমন পরিস্থিতিতে খুব সমস্যা হয়েছে।

একই এলাকার মজিদুল ইসলাম বলেন, রাতে বৃষ্টির সঙ্গে দমকা বাতাসে রাতে ঘুমাতে পারিনি। কি জানি বাতাসে ঘর ভেঙে যায়। বাতাসে অনেকের কাঁচা বাড়িঘর ভেঙেছে। দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ না থাকার কারণে মোবাইলের নেটওয়ার্কও পাওয়া যাচ্ছে না ভালো মতো। তবে সকাল থেকে বৃষ্টি ও দমকা বাতাস নেই।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সুবল চন্দ্র সরকার বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে কুড়িগ্রামে বৃষ্টি হচ্ছে। এর প্রভাব আগামীকাল পর্যন্ত থাকতে পারে।

কুড়িগ্রাম লালমনিরহাট পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) মো. মহিতুল ইসলাম বলেন, ঘূর্ণিঝড় রেমালের প্রভাবে কুড়িগ্রামে দমকা বাতাসে গাছপালা ভেঙে বিদ্যুতের লাইনে পড়ে। যার ফলে গতকাল সন্ধ্যা থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। আমাদের লোকজন কাজ করছে। মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ স্বাভাবিক হতে পারে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –