• রোববার ১৯ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলকদ ১৪৪৫

শেখ হাসিনা দেশে ফিরেছিলেন বলেই গণতন্ত্র ফিরেছে: তথ্যমন্ত্রী

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ৭ মে ২০২৩  

 
আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ব‌লে‌ছেন, শেখ হাসিনা যদি দেশে না ফিরতেন তাহলে গণতন্ত্র ফিরতো না। তি‌নি দেশে ফিরে এসেছিলেন বলেই দেশে গণতন্ত্র ফিরেছে, মানুষ মুক্তি পেয়েছে।
রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা বাংলার স্থপতি বইয়ের লেখকের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, দেশ আজ বিশ্বের দরবারে রোল মডেল। পাকিস্তান সৃষ্টি হওয়ার পর পর বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশর স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখেছিলেন। ধীরে ধীরে দেশের মানুষকে সংগঠিত করে দেশকে স্বাধীন করেছেন। তার মতো বিচক্ষণ ও ধৈর্যশীল মানুষ বিরল।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে অনেকেই বই লিখ‌ছে। কিন্তু ইদানীং দেখা যাচ্ছে, বইয়ে ইতিহাস বিকৃতি করা হচ্ছে, মান ঠিক থাকছে না। বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে রচিত বইগুলোর নির্দিষ্ট মানদণ্ড প্রয়োজন, যেন ইতিহাস বা তথ্য বিকৃতি না হয়।

সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, বিবিসি অনলাইনে এক জরিপ করেছিল, যেখানে পুরো বিশ্ব থেকে বাঙালিরা অংশগ্রহণ করেছিল। সে জরিপে উঠে এসেছিল বঙ্গবন্ধু সর্বকালের শ্রেষ্ঠ বাঙালি।

আওয়ামী লী‌গের এ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ব‌লেন, বাঙালি জাতিসত্তার উন্মেষ ঘটেছিল ৫ হাজার বছর আগে। কিন্তু তারা কেউ স্বাধীন ছিল না। খণ্ড খণ্ড দু একটি রাজ্য স্বাধীন থাকলেও বেশিরভাগই ছিল পরাধীন। তবে বাঙালি জাতির স্বাধীনতার আকাঙ্ক্ষা ছিল, তারা বারবার বিদ্রোহ করেছে। ক্ষুদিরাম, সূর্যসেন, তিতুমীর বাঙালির স্বাধীনতার ইতিহাসের উজ্জ্বল উদাহরণ।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু ছিলেন রাজনীতির কবি। তিনি জানতেন জনগণের কাছে কখন কি পেশ করতে হবে। তিনি জনগণের মন বুঝতেন। পাকিস্তান সৃষ্টির পরেই তিনি দেশের স্বাধীনতার পরিকল্পনা করেন। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর মৃত্যুর পর তিনি ৬ দফা দাবি উত্থাপন করেছিলেন। এতে পাকিস্তান প্রশাসন ক্ষুব্ধ হয়েছিল। তাকে আপোষ করতে বলা হলেও তিনি তা করেননি, কারণ সেটা ততোদিনে হয়ে উঠেছিল জনগণের দাবি।

অনুষ্ঠানের আয়োজন করে বাংলাদেশ খ্রিস্টান যুব কল্যাণ সমিতি। এতে উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ছাদেকুল আরেফিন মতিন, পিআইবির ডিজি জাফর ওয়াজেদ, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ প্রতিনিধি শহীদ উল্লাহ খন্দকার প্রমুখ।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –