• রোববার ১৯ মে ২০২৪ ||

  • জ্যৈষ্ঠ ৫ ১৪৩১

  • || ১০ জ্বিলকদ ১৪৪৫

বিপদসীমার নিচে কুড়িগ্রাম জেলার সবগুলো নদীর পানি

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ২২ আগস্ট ২০২৩  

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও ভারী বর্ষণের ফলে কুড়িগ্রাম জেলার সবগুলো নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। সম্প্রতি পানি কিছুটা বাড়তে শুরু করলেও সকল নদীর পানি বিপদসীমার অনেক নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। 

জেলায় এখন পর্যন্ত নদী সংলগ্ন বিভিন্ন ইউনিয়নের নিম্ন এলাকায় পানিতে প্লাবিত হয়েছে জেলায় বর্তমানে ৩৬১ টি আশ্রয় কেন্দ্র এবং ২৭৫ টি নৌযান প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক ৫ কি.মি.নদীর তীরে আপদকালীন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলাধীন বামনডাঙ্গা, রায়গঞ্জ, বল্লভেরখাস, বেরুবাড়ী,কালিগঞ্জ এবং নারায়নপুর ইউনিয়নের নদী সংলগ্ন নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পাশাপাশি পূর্ব থেকে বামনডাঙ্গা ইউনিয়নের দুধকুমার নদীর ভিতরের চরে অবস্থিত মুড়িয়াঘাট,আদর্শ বাজার, মিনাবাজার, চরনুছনি, কুটিরচর, মাটিয়ালিরচর,তেলানিপাড় ডুবে যায়। এছাড়া ভুরুঙ্গামারী:৭, নাগেশ্বরী: ৯, ফুলবাড়ী: ৫, কুড়িগ্রাম সদর: ৫, রাজারহাট: ৫, উলিপুর: ৬, চিলমারী: ৪,রৌমারী:৩ এবং রাজিড়পুর উপজেলায় ৩ টি ইউনিয়নে বন্যার পানি প্রবেশ করেছে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল আরীফ গণমাধ্যমকে জানান, ইতিমধ্যে জেলার নয়টি উপজেলায় ৬৫ মে: টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও  ২৮৭.০০ মে.টন চাল, ১৫০০০০ টাকা ও ১৭০০ প্যাকেট শুকনো খাবার ও পানি বিশুদ্ধকরণ ১০ লক্ষ ট্যাবলেট মজুদ রয়েছে। 

তিনি আরো জানান, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় হতে ১০০ মেট্রিক টন চাল, ১০ লক্ষ টাকা এবং ২০০০ প্যাকেট অতিরিক্ত খাবার বরাদ্দ পাওয়া গেছে।

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –