• শুক্রবার   ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||

  • আশ্বিন ১৫ ১৪২৯

  • || ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সর্বশেষ:
ধর্ম নিরপেক্ষতা সমুন্নত রাখতে শেখ হাসিনাই `একমাত্র ভরসা’- ইন্ডিয়া টুডে আপাতত অফিস সময়ে কোনো পরিবর্তন আনা হচ্ছে না সুশাসন প্রতিষ্ঠায় প্রয়োজন শুদ্ধাচারের প্রয়োগ: মন্ত্রিপরিষদ সচিব শিশুরাই উন্নত বাংলাদেশ গড়ার মূল কারিগর: প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন দলগতভাবে বিএনপিকে প্রতিহত করা হবে: জাহাঙ্গীর কবির নানক

ফুলবাড়ীতে বৃদ্ধা মায়ের ভিটে দখলের অভিযোগ ছেলের বিরুদ্ধে

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –

প্রকাশিত: ১৫ আগস্ট ২০২২  

ফুলবাড়ীতে বৃদ্ধা মায়ের ভিটে দখলের অভিযোগ ছেলের বিরুদ্ধে                                   
বৃদ্ধা মা ছবিরন বেওয়া ও ছোটভাই আব্দুর রহিমের ১৭ শতাংশ জমি নিজের দখলে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে সহিদ আলীর বিরুদ্ধে। কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার কাশিপুর ইউপির ধর্মপুর বাজার সংলগ্ন বৃষ্টদেব গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বৃদ্ধা ছবিরন বেওয়া গ ৫ আগস্ট রাতে বড় ছেলে সহিদ আলীসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে ফুলবাড়ী থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

অভিযুক্তরা হলেন ফুলবাড়ী উপজেলার কাশিপুর ইউপির ধর্মপুর বাজার সংলগ্ন বৃষ্টদেব গ্রামের বৃদ্ধা ছবিরন বেওয়ার বড় ছেলে সহিদ আলী, সহিদ আলীর ছেলে আব্দুল মালেক, স্ত্রী ছামিরন বেগম ও সহিদ আলীর চাচা হুজুর আলীর ছেলে জাহিদ আলী ও  জাহিদের স্ত্রী লাভলী বেগম। 

জানা গেছে, বৃদ্ধা ছবিরন বেওয়াকে তার বাবা ১৭ শতাংশ জমি রেজিস্ট্রি করে দেন। বাবার দেয়া ১৭ শতাংশ জমিতে দীর্ঘদিন ধরে বড় ছেলে সহিদ আলী ও ছোট ছেলে আব্দুর রহিমসহ তিনি বসবাস করে আসছেন।

এরমধ্যে বড় ছেলে সহিদ আলী ওই জমির ৮ দশমিক ৫০ শতাংশে আলাদা বাড়ি নির্মাণ করেন। বাকী ৮ দশমিক ৫০ শতাংশে বৃদ্ধা ও তার ছোট ছেলে ঘর বাড়ি নির্মাণ করে বসবাস করছেন। বড় ছেলে সহিদ আলী বৃদ্ধাকে ভোরণ পোষণ না করায় ছোট ছেলে আব্দুর রহিম বৃদ্ধা ছবিরন বেওয়াকে দীর্ঘদিন ধরেই ভোরণপোষণ করে আসছেন।

সহিদ আলী স্থানীয়দের বলেন, তার মায়ের ১৭ শতাংশ জমি সে পুরোটায় কিনে নিয়েছে। এখন যে কোনো সময় তার বৃদ্ধা মা ছবিরন বেগম ও ছোটভাই আব্দুর রহিমকে বসতভিটা থেকে উচ্ছেদ করে দিবেন।
 
আব্দুর রহিম জানান, আমার বড়ভাই সহিদ আলী গংদের অত্যাচার নির্যাতন ও হত্যার হুমকীতে বৃদ্ধা মা ছবিরন বেওয়াকে নিয়ে আতঙ্কে দিনাতিপাত করছি। সহিদ আলী গংরা আমাকে ও আমার মাকে হত্যা করে আমার জমি ও মায়ের জমি দখল করার ষড়যন্ত্র করছে। তারা মাদক দিয়ে আমাকে জেল খাটানোর ষড়যন্ত্র করছে। 

অভিযুক্ত সহিদ আলী জানান, মা ছবিরন বেওয়া আমাকে টাকার বিনিময়ে ১৭ শতাংশ জমি পুরোটাই রেজিস্ট্রি করে দিয়েছেন। আমি আমার জমিতে ওদের থাকতে দেব না।

বৃদ্ধা ছবিরন বেওয়া জানান, ‘আমার পেটের ছাওয়া (সন্তান) সহিদ আলী আজ আমার ও আমার ছোট ছেলের শত্রু। তাকে পেটে রেখে যেন একটি সাপ পুষেছি। সে আমাকে ও আমার ছোট ছেলে আব্দুর রহিমকে হত্যা করে জমি দখল করতে যায়। তাকে কোনো জমি আলাদাভাবে লিখে দেইনি। সহিদ আলীর ষড়যন্ত্র থেকে বাঁচতে চাই।’ 

ফুলবাড়ী থানার ওসি ফজলুর রহমান বৃদ্ধা ছবিরন বেওয়ার দায়ের করা অভিযোগ পাওয়ার কথা স্বীকার করেছেন। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  

– কুড়িগ্রাম বার্তা নিউজ ডেস্ক –